বুধবার , ২৭ অক্টোবর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » খেলা » বিশ্বকাপে দল বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিসি


বিশ্বকাপে দল বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিসি




ফটো নিউজ ২৪ : 01/06/2021


-->

টেস্ট মর্যাদা পাওয়া সব দলেরও খেলার সুযোগ নেই বিশ্বকাপে। সহযোগী দেশগুলোর সম্ভাবনা তো আরও দূরের ব্যাপার। এবার অনেকের জন্যই খুলে যাচ্ছে দুয়ার। বিশ্বকাপে দল বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিসি।

ক্রিকেট খেলাকে বিশ্বময় আরও ছড়িয়ে দিতে সীমিত ওভারের দুটি বিশ্বকাপে দলসংখ্যা বাড়িয়েছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। পুরুষদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দল সংখ্যা ১৬ থেকে বেড়ে হচ্ছে ২০, আর ১০ দলের ওয়ানডে বিশ্বকাপ সামনে হবে ১৪ দলের।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আইসিসি জানায়, বোর্ডের সভায় ২০২৪ থেকে ২০৩১ সালের ৮ বছরের চক্রে বৈশ্বিক টুর্নামেন্টগুলোতে দল বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রতি বছরই পুরুষ ও মেয়েদের ক্রিকেটে থাকছে একটি করে আইসিসি টুর্নামেন্ট।

পুরুষদের ক্রিকেটে ১৪ দল ও ৫৪ ম্যাচের ওয়ানডে বিশ্বকাপ দুটি হবে আগামী ২০২৭ ও ২০৩১ সালে। এই টুর্নামেন্টে ফিরছে সুপার সিক্স পর্ব।

প্রাথমিক পর্বে দুটি গ্রুপে ৭টি করে দল থাকবে। প্রতিটি গ্রুপের শীর্ষ তিন দল জায়গা করে নিবে সুপার সিক্সে। সেখান থেকে সেমি-ফাইনাল খেলবে সেরা চার দল। এরপর ফাইনাল।

২০০৩ সালের বিশ্বকাপ আয়োজিত হয়েছিল এই ফরম্যাটে।

ওয়ানডে বিশ্বকাপে দল বাড়ানোর পদক্ষেপ খুবই ইতিবাচক। ৫০ ওভারের সংস্করণে দল সংখ্যা কমানো হচ্ছিল ক্রমেই। ২০০৭ আসরে যেখানে অংশ নিয়েছিল ১৬ দল, ২০১১ ও ২০১৫ আসরে ১৪ দল, সেখানে ২০১৯ আসরে সংখ্যা আরও কমিয়ে আনা হয় ১০ দলে। মূলত ‘বিগ থ্রি’ গঠিত হওয়ার বিশ্বকাপে দল সংখ্যা এত কমানো হয়েছিল এই কারণ দেখিয়ে যে, ব্রডকাস্টাররা একতরফা ম্যাচ কম চায়। এখন আর ‘বিগ থ্রি’ নেই। তাই বাস্তবে রূপ নিয়েছে এই পরিকল্পনা।

পুরুষদের ক্রিকেটে দুই বছর ব্যবধানে এই চক্রে হবে চারটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ৫৫ ম্যাচের আসরগুলো হবে ২০২৪, ২০২৬, ২০২৮ ও ২০৩০ সালে। সেখানে প্রাথমিক পর্ব থেকেই সবগুলি দল অংশগ্রহণ করবে। চার গ্রুপে থাকবে পাঁচটি করে দল। প্রতিটি গ্রুপের শীর্ষ দুই দল যাবে পরের রাউন্ডে, সুপার এইট। নকআউট পর্ব সেমি-ফাইনালে এখান থেকে যাবে চার দল। এরপর হবে ফাইনাল।

এখন ১৬ দলের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রাথমিক পর্বে দুই গ্রুপে অংশ নেয় চারটি করে দল। পরে মূল পর্বে ১০ দল খেলে দুটি গ্রুপে ভাগ হয়ে।

এই সময়ে ৮ দলের দুটি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিও আয়োজন করবে আইসিসি। ২০২৫ ও ২০২৯ সালে মাঠে গড়াবে টুর্নামেন্ট দুটি। যার সবশেষ আসরটি হয়েছিল ২০১৭ সালে। এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ আট দল।

৯ দলের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল হবে ২০২৫, ২০২৭, ২০২৯ ও ২০৩১ সালে।

মেয়েদের দুই সংস্করণের বিশ্বকাপে দল বাড়ানোর ঘোষণা আগেই দিয়েছিল আইসিসি। পরের চক্রে দুইটি করে ওয়ানডে বিশ্বকাপ ও টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি হবে মেয়েদের। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হবে চারটি।

২০২৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নেবে ১০টি দল। পরের তিন আসরে ১২টি করে দল। ২০২৫ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে অংশ নেবে ৮ দল, চার বছর পরের আসরে ১০টি। ২০২৭ ও ২০৩১ সালের টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে অংশ নেবে ৬টি করে দল।

ছেলেদের আসরগুলোর আয়োজক নির্বাচনের প্রক্রিয়া এই মাসেই শুরু করবে বলে জানিয়েছে আইসিসি। সেপ্টেম্বরে জানিয়ে দেওয়া হবে টুর্নামেন্টগুলোর আয়োজক দেশের নাম। মেয়েদের ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বৈশ্বিক আসরগুলোর আয়োজক দেশ বাছাইয়ের প্রক্রিয়া শুরু হবে আগামী নভেম্বরে।

এদিকে ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাতে ভারতকে জুনের শেষ সপ্তাহ পর্যন্ত সময় দিয়েছে আইসিসি।


-->


সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: Photonews24@yahoo.com

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: shufian707@gmail.com