বৃহস্পতিবার , ২৪ জুন ২০২১


করোনাভাইরাসের নতুন ধরনগুলো গ্রিক হরফে পেল নতুন নাম




ফটো নিউজ ২৪ : 01/06/2021


-->

করোনাভাইরাসের নতুন ধরনগুলোর নাম নিয়ে জটিলতার নিরসনে গ্রিক বর্ণমালার শরণ নিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-ডব্লিউএইচও ।
যুক্তরাজ্যে গতবছরের শেষ দিকে এ ভাইরাসের যে ধরনটি ছড়াতে শুরু করেছিল, সেটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘আলফা’। দক্ষিণ আফ্রিকায় পাওয়া ধরনটির নাম হয়েছে ‘বেটা’।

আর সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতকে বিপর্যস্ত করে ফেলা নতুন ধরনটি ‘ডেলটা’ নাম পেয়েছে।

ডব্লিউএইচও সোমবার নতুন এই নামকরণ পদ্ধতির ঘোষণা দিয়েছে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

বিশ্ব স্থাস্থ্য সংস্থা বলেছে, করোনাভাইরাসের নতুন ধরন নিয়ে আলোচনা সহজ করার জন্যই তাদের এ নতুন পদ্ধাতির প্রবর্তন।

আর এখন যেভাবে নতুন একটি ভ্যারিয়েন্ট পাওয়ার পর তাকে দেশের নাম দিয়ে টিহ্নিত করা হচ্ছে, সেই জটিলতাও এ ব্যবস্থায় এড়ানো যাবে বলে ডব্লিউএইচও আশা করছে।

ভারতে পাওয়া করোনাভাইরাসের অতি সংক্রামক ধরনটিকে ‘ইন্ডিয়ান ভ্যারিয়েন্ট’ বলা নিয়ে এ মাসের শুরুতেই আপত্তি জানিয়েছিল দেশটির সরকার।

যে যে লেখায় বা পোস্টে ‘ইন্ডিয়ান ভ্যারিয়েন্ট’ কথাটি থাকবে, সেগুলো বাদ দিতে নয়া দিল্লির পক্ষ থেকে সোশাল মিডিয়া কর্তৃপক্ষগুলোকে বলা হয়েছিল।

নতুন নামকরণ পদ্ধতি ঘোষণার পর ডব্লিউএইচওর কারিগরি কমিটির প্রধান মারিয়া ফন কারখোভ এক টুইটে লিখেছেন, “নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত করা বা সে কথা জানানোর জন্য কোনো দেশকে কালিমা লিপ্ত করা উচিত নয়।”

ক্রমাগত রূপ বদলাতে থাকা করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্টগুলো শনাক্তের জন্য কড়া নজরদারির সেগুলোর বিস্তার ঠেকাতে পাশাপাশি বৈজ্ঞানিক গবেষণার তথ্য বিনিময়ের ওপরও জোর দিচ্ছেন ডব্লিউএইচওর এই কর্মকর্তা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওয়েবসাইটে নতুন নামের পূর্ণ তালিকা দেওয়া হয়েছে। যেখানে ‘ভ্যারিয়েন্টস অব কনসার্ন’ এবং ‘ভ্যারিয়েন্টস অব ইন্টারেস্ট’ এই দুটো ক্ষেত্রেই গ্রিক হরফ ব্যবহার করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য বিষয়ক সংবাদ মাধ্যম স্ট্যাট নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মারিয়া ফন কারখোভ বলেছেন, ভাইরাসের বিদ্যমান বৈজ্ঞানিক নাম ঠিকই থাকবে। পাশাপাশি গ্রিক বর্ণমালাগুলো থেকে দেওয়া নতুন নাম ব্যবহার করা হবে আলোচনার সুবিধার জন্য।

গ্রিক বর্ণমালায় হরফ আছে ২৪টি। যদি ভাইরাসের ২৪টির বেশি ধরন শনাক্ত হয় এবং ব্যবহারের জন্য আর কোনো গ্রিক হরফ না থাকে তখন নামকরণের নতুন পদ্ধতি ঘোষণা করা হবে।

“আমরা বি.১.১.৭ নামটি প্রতিস্থাপন করার কথা বলছি না, সাধারণ মানুষের সঙ্গে সংলাপে সহায়তার জন্য চেষ্টা করছি, যাতে জনগণের সঙ্গে কিছু ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে আমরা আরও সহজে আলাপ করতে পারি।”

যুক্তরাজ্য সরকারকে পরামর্শ দেওয়া একজন বিজ্ঞানী বলেছেন, সংক্রমণ বাড়ায় মহামারীর তৃতীয় ঢেউ শুরুর অবস্থায় পৌঁছে গিয়েছিল দেশটি। ভারতে পাওয়া করোনাভাইরাসের ধরন ‘ডেল্টা’ এর জন্য কিছুটা দায়ী।

এই ভ্যারিয়েন্ট আলফার (ইউকে; কেন্ট) চেয়ে দ্রুত ছড়ায় বলে মনে করা হচ্ছে। শীতে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার জন্যও ওই ধরনটি দায়ী।

ভিয়েতনামে করোনাভাইরাসের ওই দুটি ধরনের সমন্বিত একটি নতুন ধরন পাওয়া গেছে। শনিবার দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, এটা ‘খুবই বিপজ্জনক’ এবং বাতাসের মাধ্যমে দ্রুত ছড়াতে পারে।


-->


সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: Photonews24@yahoo.com

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: shufian707@gmail.com