বৃহস্পতিবার , ৯ জুলাই ২০২০


ভারতজুড়ে লকডাউনের মেয়াদ আরও দুই সপ্তাহ বাড়ানোর ইঙ্গিত দিলেন নরেন্দ্র মোদী




ফটো নিউজ ২৪ : 11/04/2020


-->

নভেল করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে ভারতজুড়ে লকডাউনের মেয়াদ আরও দুই সপ্তাহ বাড়ানো হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

শনিবার ভারতের অন্তত ১৩টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে চার ঘণ্টা ভিডিও কনফারেন্সে তাদের লকডাউন বাড়ানোর অনুরোধের সঙ্গে একমত হওয়ার পর মোদী এ ইঙ্গিত দেন বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

দেশটিতে গত মাসের শেষদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া ২১ দিনের লকডাউনের মেয়াদ মঙ্গলবার শেষ হচ্ছে।

এরপর লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হবে, নাকি অর্থনীতি সচল করতে ও নিম্নবিত্ত-শ্রমিকদের কাজে ফেরাতে বিধিনিষেধ শিথিল হবে তা নিয়ে কয়েকদিন ধরেই তুমুল আলোচনা চলছিল।

এ পরিস্থিতিতে মহামারী নিয়ন্ত্রণে শুধু জীবন রক্ষার নীতি থেকে সরে এসে একইসঙ্গে জীবন ও অর্থনীতি রক্ষার ইঙ্গিত দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

তিন সপ্তাহ আগে লকডাউনের ঘোষণায় মোদী বলেছিলেন, “জীবন বাঁচলেই বিশ্ব বাঁচবে।”

কিন্তু এদিনের ভিডিও কনফারেন্সের শেষ দিকে তিনি বলেন, “জীবন ও অর্থনীতি উভয়ই গুরুত্বপূর্ণ।”

লকডাউনের কারণে ব্যবসাবাণিজ্য ব্যাপক চাপে পড়ায় তিনি আগের অবস্থান থেকে সরে আসলেন বলে ধারণা গণমাধ্যমের।

মোদীর সঙ্গে বৈঠক শেষ হওয়ার কয়েক মিনিট পর দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এক টুইটে বলেন, “লকডাউন বাড়ানোর সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আজ অনেক উন্নত দেশ থেকেও ভারতের অবস্থান ভালো কারণ আমরা আগেভাবে লকডাউন শুরু করেছিলাম। যদি এখন এটি থামানো হয়, সব অর্জন হারিয়ে যেতে পারে।

 

নভেল করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে ভারতজুড়ে লকডাউনের মেয়াদ আরও দুই সপ্তাহ বাড়ানো হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

শনিবার ভারতের অন্তত ১৩টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে চার ঘণ্টা ভিডিও কনফারেন্সে তাদের লকডাউন বাড়ানোর অনুরোধের সঙ্গে একমত হওয়ার পর মোদী এ ইঙ্গিত দেন বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

দেশটিতে গত মাসের শেষদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া ২১ দিনের লকডাউনের মেয়াদ মঙ্গলবার শেষ হচ্ছে।

এরপর লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হবে, নাকি অর্থনীতি সচল করতে ও নিম্নবিত্ত-শ্রমিকদের কাজে ফেরাতে বিধিনিষেধ শিথিল হবে তা নিয়ে কয়েকদিন ধরেই তুমুল আলোচনা চলছিল।

এ পরিস্থিতিতে মহামারী নিয়ন্ত্রণে শুধু জীবন রক্ষার নীতি থেকে সরে এসে একইসঙ্গে জীবন ও অর্থনীতি রক্ষার ইঙ্গিত দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

তিন সপ্তাহ আগে লকডাউনের ঘোষণায় মোদী বলেছিলেন, “জীবন বাঁচলেই বিশ্ব বাঁচবে।”

কিন্তু এদিনের ভিডিও কনফারেন্সের শেষ দিকে তিনি বলেন, “জীবন ও অর্থনীতি উভয়ই গুরুত্বপূর্ণ।”

লকডাউনের কারণে ব্যবসাবাণিজ্য ব্যাপক চাপে পড়ায় তিনি আগের অবস্থান থেকে সরে আসলেন বলে ধারণা গণমাধ্যমের।

মোদীর সঙ্গে বৈঠক শেষ হওয়ার কয়েক মিনিট পর দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এক টুইটে বলেন, “লকডাউন বাড়ানোর সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আজ অনেক উন্নত দেশ থেকেও ভারতের অবস্থান ভালো কারণ আমরা আগেভাবে লকডাউন শুরু করেছিলাম। যদি এখন এটি থামানো হয়, সব অর্জন হারিয়ে যেতে পারে।

“এটিকে আরও দৃঢ় করতে এর মেয়াদ বাড়ানো দরকার।”

মোদীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে থাকা পাঞ্জাব, দিল্লি, পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র, উত্তর প্রদেশসহ অন্তত ১০টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী লকডাউন বাড়াতে অনুরোধ করেছেন বলে জানা গেছে।

রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলত বলেন, “দেশজুড়ে লকডাউন বাড়ানো দরকার। রবি শস্যের জন্য আমাদের একটি সাধারণ ত্রাণ নীতি দরকার।”

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘মানবিক ও বাস্তব’ বিষয়গুলোর দিকে খেয়াল রেখে লকডাউন বাড়ানো দরকার বলে মন্তব্য করেছেন।

লকডাউন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত ঘোষণার জন্য মোদী টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

চার ঘণ্টা বৈঠক শেষে মোদী জানিয়েছেন, তিনি শিল্প কারখানা ও নির্মাণখাতের কাজগুলো ধাপে ধাপে শুরু করার অনুমোদন দেবেন।

পাশাপাশি অন্যান্য বিধিনিষেধও ধাপে ধাপে শিথিল করা হবে এবং কৃষকদের জন্য আরেকটি আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করা হবে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম অর্থনীতির এ দেশটিতে শনিবার সকাল পর্যন্ত কোভিড-১৯ এ সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৭ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছেছে। এদের মধ্যে ২৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের আগেই ওড়িষা এবং পাঞ্জাবের সরকার এপ্রিলের শেষ পর্যন্ত নিজ নিজ রাজ্যে লকডাউন বহাল রাখার ঘোষণা দিয়েছে।


-->


সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: Photonews24@yahoo.com

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: shufian707@gmail.com