বৃহস্পতিবার , ২২ অগাস্ট ২০১৯


সাইফের এই পিঠের চোট ৯ বছরের পুরনো!




ফটো নিউজ ২৪ : 04/08/2019


-->

বিশ্বকাপের আগে ও মাঝে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের চোট নিয়ে নাটক কম হয়নি। ইচ্ছে করেই তিনি বিগ ম্যাচে খেলেন না- এমন গুরুতর অভিযোগও উঠেছিল। মাঝে-মধ্যেই শোনা যায় সাইফউদ্দিন একই ধরনের চোটে ভুগছেন। সেই পিঠের ব্যথা।

যে চোটের জন্য শ্রীলঙ্কা সফরেও যেতে পারেননি এবার জানা গেল, সাইফের এই পিঠের চোট ৯ বছরের পুরনো! বিসিবির সংশ্লিষ্ট সবাইকে প্রায় নয় বছর ধরে এ চোটের কথা বলে আসছেন এই অল-রাউন্ডার। তাকে পুরোপুরি সুস্থ করতে বিদেশে পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করেছে বিসিবি। তবে খুব সহজেই যে এই চোট থেকে মুক্ত হবেন সাইফউদ্দিন, তেমন আশা দেখা যাচ্ছে না।

সংবাদমাধ্যমকে আজ রবিবার দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, ‘সাইফউদ্দিন একটা ক্রনিক লো ব্যাক পেইনে ভুগছে। প্রায় ৯ বছর ধরে এ সমস্যাটার কথা সে মাঝে-মধ্যেই আমাদের বলে আসছে। সাম্প্রতিক সময়ে ওর ব্যথাটা বেড়ে যাওয়ায় মাস ছয়েক আগে আমরা পরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হই, ও এক ধরনের ফ্যাসেট জয়েন্ট সমস্যায় ভুগছে। ফলশ্রুতিতে চিকিৎসার অংশ হিসেবে বিশ্বকাপের আগে আমরা ওর পুনর্বাসন ও ব্যবস্থাপনার চেষ্টা করি। এ চেষ্টায় পুরোপুরি সাফল্য না আসায় আমরা ওকে ইনজেকশন দিই। এতে ওর ব্যথা কিছুটা কমে এবং সে তার খেলা চালিয়ে যেতে পারে।’

বিশ্বকাপের পর থেকে সাইফউদ্দিনের চিকিৎসার ব্যাপারে সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর চেষ্টা করে হচ্ছে বলে জানিয়ে দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, ‘যেভাবে আমরা আগাচ্ছি সেটা হচ্ছে ওর এই সমস্যার কারণটা বের করতে হবে। সেটা নির্ণয় করা আমাদের দেশে সম্ভব না। এ জন্য আমরা চেষ্টা করছি ওকে বাইরে কোথাও পাঠিয়ে ওর একটা বায়োমেকানিক্যাল পরীক্ষার জন্য। কোনো বায়োমেকানিক্যাল সমস্যার জন্য ওর কোমরে কোনো বিশেষ জায়গায় বারবার চাপ পড়ছে কি না, তা নির্ণয় করতে গেলে এ ধরনের সুবিধা আছে এমন জায়গায় ওকে পাঠাতে হবে। বিসিবি প্রধান নির্বাহী জানিয়েছেন, কোথায় এ ধরনের সুবিধা আছে সে ব্যাপারে খোঁজ নেওয়ার জন্য। আমরা যোগাযোগ শুরু করেছি, আশা করছি সপ্তাহখানেকের মধ্যে জানতে পারব। ওর কোনো মেকানিক্যাল সমস্যা আছে কি না, তা ধরা গেলে সেটি ঠিক করতে বিদেশি চিকিৎসকদের নির্দেশনা অনুসরণের চেষ্টা করব।’

চিকিৎসার পর কতদিনে সাইফউদ্দিন সুস্থ হয়ে উঠবেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘অ্যাসেসমেন্ট কোনো চিকিৎসা নয়, এটা এক ধরনের পরীক্ষা। অ্যাসেসমেন্টের পরদিনই আপনি খেলতে পারবেন না। আমরা জানতে চাইছি ওর সমস্যাটা কোথায়। এ ধরনের পরীক্ষা বিশেষ কিছু জায়গায় হয়। অস্ট্রেলিয়াতে আছে, ইংল্যান্ডে আছে, এমনকি ভারতেও আছে। আমরা সবার সঙ্গে চেষ্টা করব যোগাযোগ করার। যারা সাড়া দেবে আমরা তাদের সঙ্গে এগোনোর চেষ্টা করব। আমরা একটানা ওয়ার্ক লোড ম্যানেজমেন্টের আওতায় নিয়ে আসছি। প্রতিদিন কয়টা বল করবে কিংবা প্রতি সপ্তাহে কয়টা বল করবে এটার একটা বৈজ্ঞানিক নীতিমালা আছে। যাদেরই এ ধরনের সমস্যা হচ্ছে, যেমন এ মুহূর্তে সাইফউদ্দিন যেহেতু ব্যাক-পেইনে ভুগছে, ও বোলিং ওয়ার্ক লোড ম্যানেজমেন্টের আওতায় আছে।’


-->


সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: Photonews24@yahoo.com

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: shufian707@gmail.com