মঙ্গলবার , ২৬ মার্চ ২০১৯
  • প্রচ্ছদ » শীর্ষ সংবাদ » নৌকা যখন ক্ষমতায় আসে,তখন এদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয়: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা


নৌকা যখন ক্ষমতায় আসে,তখন এদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয়: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা




ফটো নিউজ ২৪ : 23/12/2018


-->

রংপুরের মানুষ বার বার নৌকায় ভোট দেওয়ায় উত্তর জনপদ মঙ্গার দুর্দশা থেকে মুক্ত হতে পেরেছে মন্তব্য করে আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ ও মহাজোটের প্রার্থীদের ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন শেখ হাসিনা।

রোববার রংপুরের তারাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ মাঠে এক নির্বাচনী জনসভায় আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ আহ্বান আসে।

 

তিনি বলেন, “পুরো রংপুরটাই ছিল এক সময় দুর্ভিক্ষপীড়িত এলাকা।

আজকে সেই দুর্দিন চলে গেছে, আজকে সুদিন এসে গেছে। রংপুরে আর মঙ্গা নাই, দুর্ভিক্ষ নাই।

“প্রত্যেকটা মানুষের খাদ্য চিকিৎসা, বাসস্থান সব ব্যবস্থা আওয়ামী লীগ সরকার করে দিয়েছে।

এটা হয়েছে একমাত্র আপনারা বারবার নৌকায় ভোট দিয়েছেন সেই কারণেই।”

 

 

দেশের উন্নয়নে গত দশ বছরে আওয়ামী লীগ সরকার যেসব উদ্যোগ নিয়েছে, তা সম্পন্ন করার জন্য ৩০ ডিসেম্বর আবারও নৌকায় ভোট দিতে রংপুরের ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

 

 

এ জনসভায় তিনি রংপুর-২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবুল কালাম মোহাম্মদ আহসানুল হক চৌধুরীকে (ডিউক চৌধুরী) পরিচয় করিয়ে দিয়ে তার জন্য ভোট চান।

এই সভা ঘিরে সকাল থেকে বিভিন্ন উপজেলার আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা মিছিল করে কলেজ মাঠে উপস্থিত হন।

রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে দলীয় প্রধানকে স্বাগত জানান তারা।

 

দুপুর সোয়া ১২টার দিকে তারাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ মাঠে আসেন শেখ হাসিনা। মাঠের বাইরে ও সড়কে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী তখন উপস্থিত ছিলেন।

রংপুরসহ সারাদেশের উন্নয়নে আওয়ামী লীগ সরকারের নানা পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, “নৌকা যখন ক্ষমতায় আসে, তখন এদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয়। এই তারাগঞ্জে আমি এসেছি, বদরগঞ্জে গিয়েছি, বাংলাদেশ আমি ঘুরেছি। আমি দেখেছি তখন দরিদ্র মানুষ, পেটে ক্ষুধার জ্বালা এসব এলাকায় ছিল মঙ্গা।

“২০০৮ সালে নির্বাচনের পর ২০০৯ সালে সরকার গঠন করেছি আমরা। এরপর থেকে এই অঞ্চলে মঙ্গা আর হয় নাই।

খাবার কোনো কষ্ট হয় নাই, ফসল উৎপাদন হচ্ছে, খাবারের ব্যবস্থা আমরা করতে পেরেছি।”

 

 

শেখ হাসিনা বলেন, “একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না। আশ্রয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে আমরা ঘরবাড়ি তৈরি করে দিচ্ছি। প্রতিটি মানুষ চিকিৎসা পাবে, কমিউনিটি ক্লিনিক করে দিয়েছি, মা-বোনেরা যাতে সেখানে গিয়ে চিকিৎসা নিতে পারেন, বিনা পয়সায় ৩০ প্রকারের ওষুধ দিচ্ছি।”

উপজেলাকেন্দ্রিক ৫৬০টি মসজিদ করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, “আধুনিক মসজিদ কাম ইসলামিক কালচারাল সেন্টার আমরা করে দিচ্ছি।”

তরুণদের জন্য কর্মসংস্থান এবং প্রতিটি এলাকায় সুপেয় পানির ব্যবস্থা করার কথা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, “আমার একটাই লক্ষ্য, আপনারা ভালো থাকবেন। “

তিনি বলেন, “কৃষকদের কার্ড করে দিয়েছি, সেই কার্ড দিয়ে কৃষক স্বল্পমূল্যে কৃষি পণ্য কিনতে পারে। কৃষক যাতে উৎপাদিত পণ্যের মূল্য পায়, সে ব্যবস্থা আমরা করে দিয়েছি। সমবায়ের মাধ্যমে চাষবাসের ব্যবস্থা করেছি।

 

 

“একটি জমিও অনাবাদী থাকবে না, প্রতিটি জমিকে আমরা আবাদী করব। খাদ্য নিরাপত্তায় বিঘ্ন না হয় আর কোনোদিনও যেন মঙ্গা না হয়, তার জন্য একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প আমরা করে দিয়েছি। এটা প্রত্যেকটা মানুষকে উন্নয়নের পথ দেখাবে। দারিদ্যের হাত থেকে মুক্তি পাবে।”

তিনি বলেন, “আমাদের ছেলেমেয়েরা লেখাপড়া করবে, বই আপনাদের কিনতে হয় না, বই আমি কিনে দিচ্ছি। প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক পর্যন্ত বিনামূল্যে বই আমরা দিচ্ছি। বৃত্তি দিচ্ছি, উপবৃত্তি দিচ্ছি।”

 

নৌকার প্রার্থীকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা যেন আবার আপনাদের সেবা করতে পারি, আবার যেন আপনাদের জন্য কাজ করতে পারি। উন্নয়ন এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি।

“এই এলাকার মানুষের সার্বিক উন্নয়নের জন্য আমরা অনেক ব্যবস্থা নিয়েছি। প্রত্যেকটা রাস্তাঘাট যাতে আরো উন্নতি হয় তার ব্যবস্থা নিয়েছি। সেই কাজগুলো সম্পন্ন করতে হবে। সেই জন্য আমরা ভোট চাই।”

উত্তরাঞ্চলের উন্নয়নে সৈয়দপুরে উত্তরা ইপিজেড করার পাশাপাশি বিভিন্ন এলাকায় অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার পাশাপাশি নারীদের উন্নয়নে নানা উদ্যোগ নেওয়ার কথাও শেখ হাসিনা তার বক্তৃতায় তুলে ধরেন।

তারাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতিয়ার রহমানের সভাপতিত্বে এ নির্বাচনী সভায় অন্যদের মধ্যে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বিএম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নুরুল ইসলাম ঠাণ্ডু, যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপন, ছাত্রলীগের সভাপতি রেজোয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, রংপুর-২ আসনের প্রার্থী ডিউক চৌধুরী বক্তব্য দেন।

উত্তর জনপদে ভোটের প্রচারে অংশ নিতে রোববার সকালে ঢাকা থেকে আকাশ পথে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে পৌঁছান শেখ হাসিনা।

সেখান থেকে সড়ক পথে তিনি যান রংপুরের তারাগঞ্জে।

এ সময় আওয়ামী লীগ সভানেত্রীকে একনজর দেখতে রাস্তার দুই ধারে দাঁড়িয়ে ছিল বহু মানুষ।

আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতাকর্মীরা এ সময় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার মেয়ে শেখ হাসিনার ছবি সম্বলিত ব্যানার, ফেস্টুন, জাতীয় পতাকা, দলীয় পতাকা হাতে নিয়ে স্লোগানে স্লোগানে দলীয় প্রধানকে স্বাগত জানান।

শেখ হাসিনা এ সময় হাত নেড়ে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা নেতাকর্মীদের শুভেচ্ছার জবাব দেন।

 

-এ


-->


সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: [email protected]

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: [email protected]