বৃহস্পতিবার , ২৩ মে ২০১৯
  • প্রচ্ছদ » খেলা » স্পিনারদের ঘূর্ণি জাদুতে আড়াইদিনেই উইন্ডিজকে হারিয়ে দিল বাংলাদেশ


স্পিনারদের ঘূর্ণি জাদুতে আড়াইদিনেই উইন্ডিজকে হারিয়ে দিল বাংলাদেশ




ফটো নিউজ ২৪ : 24/11/2018


-->

দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথমটিতে আড়াইদিনেই উইন্ডিজকে হারিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। জয়ের জন্য উইন্ডিজের সামনে ছিল ২০৪ রানের লক্ষ্য।

বাংলাদেশি স্পিনারদের ঘূর্ণি জাদুতে ১৩৯ রানেই গুটিয়ে যায় সফরকারীরা।

দ্বিতীয় ইনিংসে তাইজুল ইসলাম একাই নেন ছয় উইকেট। সব মিলিয়ে ৬৪ রানের জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ।

২০০৯ সালে প্রথমবারের মতো টেস্টে উইন্ডিজকে হারায় বাংলাদেশ। ওই সিরিজে দুটি ম্যাচই জেতে বাংলাদেশ। এরপর নয় বছরে কয়েকটি সিরিজ খেললেও ক্যারিবীয়দের হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। দীর্ঘ সেই অপেক্ষার অবসান হলো ঘরের মাঠের চলমান সিরিজে।

প্রথম টেস্ট জিতে দুই ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল সাকিব আল হাসানের দল।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হবে আগামী ৩০ নভেম্বর।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ড

বাংলাদেশ: ৩২৪ ও ১২৫

উইন্ডিজ: ২৪৬ ও ১৩৯

ফলাফল: বাংলাদেশ ৬৪ রানে জয়ী।

আমব্রিসকে ফিরিয়ে জয় এনে দিলেন তাইজুল

আগের ওভারেই মেহেদী মিরাজের বলে ফিরেছিলেন জোমেল ওয়ারিকেন। ইনিংসের ৩৬তম ওভারে সুনীল আমব্রিসকেও ফিরিয়ে দিয়ে জয় এনে দিলেন তাইজুল। বাঁহাতি এই স্পিনারের বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন আমব্রিস। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি তিনি। আমব্রিসের বিদায় ১৩৯ রানেই গুটিয়ে যায় উইন্ডিজ।

আমব্রিস-ওয়ারিকেন জুটি ভাঙলেন মিরাজ

দলীয় ৭৫ রানে আট উইকেট পতনের পর জুটি বাঁধেন সুনীল আমব্রিস ও জোমেল ওয়ারিকেন। নবম উইকেটে ৬৩ রানের জুটি বেঁধে দলকে জয়ের স্বপ্নও দেখাচ্ছিলেন এই জুটি। তবে ইনিংসের ৩৫তম ওভারে ওয়ারিকেনকে ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন মেহেদী হাসান মিরাজ। এই অফ স্পিনারের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে সাকিবের হাতে ধরা পড়েন ৫৫ বলে ৪১ রান করা ওয়ারিকেন।

তাইজুলের পাঁচ উইকেট

কেমার রোচকে ফিরিয়ে ইনিংসে নিজের পাঁচ উইকেট পূর্ণ করেছেন তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি স্পিনারের বলে এলবিডব্লিউ হয়েছেন রোচ। আম্পায়ার যদিও প্রথমে আউট দেননি। বাংলাদেশ নেয় রিভিউ। তাতে পাল্টে সিদ্ধান্ত।

তাইজুলের চতুর্থ শিকার বিশু

তাইজুল ইসলামের বলে শট খেলতে গিয়ে মিস করে বোল্ড হয়েছেন দেবেন্দ্র বিশু। ইনিংসে এটি তাইজুলের চতুর্থ উইকেট।

তাইজুলের তৃতীয় শিকার ডওরিচ

শেন ডোরিচকে ফিরিয়ে ইনিংসে নিজের তৃতীয় উইকেট নিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি স্পিনারের বলে এলবিডব্লিউ হয়েছেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। রিভিউ নিয়েও রক্ষা হয়নি।

ডওরিচ ৫ রান করে ফেরার সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৫১ রান। সুনীল অ্যামব্রিসের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন দেবেন্দ্র বিশু।

বিপজ্জনক হিটমেয়ারকে ফেরালেন মিরাজ

প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও পাল্টা আক্রমণে বাংলাদেশের বোলারদের ওপর চড়াও হয়েছিলেন শিমরন হিটমেয়ার। তবে বিপজ্জনক এই ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে স্বস্তি ফেরান মেহেদী হাসান মিরাজ।

মিরাজকে ডাউন দ্য উইকেটে এসে খেলতে গিয়ে নাঈমের হাতে ধরা পড়েন হেটমায়ার। হেটমায়ারের বিদায়ে ভাঙে ৩৩ রানের পঞ্চম উইকেটে জুটি। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান ১৯ বলে করেন ২৭ রান।

আবারও তাইজুলের আঘাত

ওভারের প্রথম বলেই ফিরিয়েছিলেন ক্রেইগ ব্রাথওয়েটকে। পঞ্চম বলে ফেরালেন রোস্টন চেজকে। দুজনই এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েছেন। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি তারা। মধ্যাহ্নবভোজের বিরতির আগে একই ওভারে দুই উইকেট নিয়ে স্বাগতিকদের খেলায় ফেরান এই বাঁহাতি স্পিনার।

সাকিবের পর তাইজুলের আঘাত

দ্বিতীয় ইনিংসে নিজের প্রথম ওভারেই সাফল্য পেলেন তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি এই স্পিনারের বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন ক্রেইগ ব্রাথওয়েট। আউট হওয়ার আগে ২২ বল কেলে ৮ রান করেন তিনি।

আবারও সাকিবের আঘাত

আগের ওভারে ফিরিয়েছিলেন ওপেনার কারিওন পাওয়েলকে। পরের ওভারে বাঁহাতি এই স্পিনারের শিকার তিন নম্বরে নামা শাই হোপ। সাকিবের বলে ডিফেন্স করতে চেয়েছিলেন হোপ। স্পিন করা বলটি তার ব্যাট ছুয়ে চলে যায় উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিমের গ্লাভসে।আউট হওয়ার আগে ৩ রান করেন হোপ।

উদ্বোধনী জুটি ভাঙলেন সাকিব

ইনিংসের তৃতীয় ওভারের চতুর্থ বল। সাকিব আল হাসানের বলটি সামনে এগিয়ে এসে খেলতে চেয়েছিলেন কাইরন পাওয়েল। বলের লাইন মিস করেন তিনি। বল ধরেই উইকেট ভেঙ্গে দেন মুশফিকুর রহিম।
সাদা পোশাকে এটা সাকিবের ২০০ তম উইকেট।

হতশ্রী ব্যাটিংয়ে বড় লক্ষ্য দেওয়া হলো না বাংলাদেশের

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৫৫ রান তুলতেই বাংলাদেশ হারায় পাঁচ উইকেট। হাতে ছিল পাঁচ উইকেট। কিছুটা হলেও আশা বেঁচে ছিল তৃতীয় দিনের জন্য। কিন্তু এদিনও হতাশ করেছেন বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা।

দায়িত্ব নিয়ে খেলতে পারেননি কোন ব্যাটসম্যানই। আগের দিনের সঙ্গে ৭০ রান যোগ করতেই নেই বাংলাদেশের শেষ পাঁচ উইকেট। লিড দাঁড়ায় ২০৩ রানের। সবমিলিয়ে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথমটিতে চতুর্থ ইনিংসে সফরকারীদের ২০৪ রানের লক্ষ্য দিয়েছে বাংলাদেশ।

মুস্তাফিজ ফিরলেন রোস্টন চেজের বলে

ইনিংসের ৩৬তম ওভারে রোস্টন চেজের বলে উড়িয়ে মেরেছিলেন তাইজুল ইসলাম। কিন্তু লং অনে জোমেল ওয়ারিকেনের হাতে ধরা পড়েন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

ফিরলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও

নাঈম হাসানকে ফেরানোর এক বল পর আবারও দেবেন্দ্র বিশুর আঘাত। এবার এই লেগ স্পিনারের শিকার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। বিশুর বলে সুইপ করতে চেয়েছিলেন রিয়াদ। কিন্তু ব্যাটে-বলে ঠিকমতো হয়নি। প্রথম স্লিপে শাই হোপের হাতে ধরা পড়েন তিনি। আউট হওয়ার আগে ৪৬ বলে ৩১ রান করেন রিয়াদ। এটা বিশুর চতুর্থ শিকার।

বিশুর তৃতীয় শিকার নাঈম

ইনিংসের ৩৪তম ওভারের দ্বিতীয় বল। দেবেন্দ্র বিশুকে অফস্টাম্পের বাইরের বল নাঈম হাসানের ব্যাতে লেগে চলে যায় প্রথম স্লিপে। সেখানে সহজেই ক্যাচটি তালুবন্দী করেন শাই হোপ। আউট হওয়ার আগে ২৭ বলে ৫ রান করেন নাঈম।

দুইশ পেরিয়ে বাংলাদেশের লিড

ইনিংসের ৩৪তম ওভারের প্রথম বল। দেবেন্দ্র বিশুকে ডিপ পয়েন্টে পাঠিয়ে সিঙ্গেল নেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এই সিঙ্গেলের মধ্য দিয়ে স্বাগতিকদের লিড ২০০ ছাড়িয়েছে।

বিশুর বলে ফিরলেন মিরাজ

ইনিংসের ২৯তম ওভারের প্রথম বল। লেগ স্পিনার দেবেন্দ্র বিশুর ঝুলিয়ে দেওয়া বলটি এগিয়ে এসে ডিফেন্স করতে চেয়েছিলেন মিরাজ। বল তার ব্যাট ছুয়ে চলে যায় উইকেটরক্ষক শ্যেন ডওরিচের হাতে। আউট হওয়ার আগে মিরাজ ৩৫ বলে করেন ১৮ রান।

দিনের শুরুতেই মুশফিকের বিদায়

চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুড়ে দিতে পুরো বাংলাদেশ তাকিয়ে ছিল মুশফিকুর রহিমের দিকেই। কিন্তু তৃতীয় দিনের সকালে হতাশই করলেন জাতীয় দলের নির্ভরযোগ্য এই ব্যাটসম্যান। দিনের দ্বিতীয় ওভারে শেন গ্যাব্রিয়েলের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরে যান মুশফিক। প্রথম ইনিংসেও এই গ্যাব্রিয়েলের বলেই সাজঘরে ফিরেছিলেন তিনি।

আউট হওয়ার আগে মুশফিক করেন ৩৯ বলে ১৯ রান।

মুশফিক-মিরাজের দিকে তাকিয়ে বাংলাদেশ

দ্বিতীয় দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৫৫ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের চেয়ে স্বাগতিকরা এগিয়ে ১৩৩ রানে, হাতে ৫ উইকেট। এ অবস্থায় সবচেয়ে বড় প্রশ্ন তৃতীয় দিনে কতদূর যাবে বাংলাদেশ?

মুশফিকুর রহিম ১১ ও মেহেদী হাসান মিরাজ ০ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করেন। পুরো বাংলাদেশ আজ তাকিয়ে এই দুই ব্যাটসম্যানের দিকে। সময়ের সঙ্গে উইকেটে ঘূর্ণি, বাউন্স বাড়ার কথা। তৃতীয় দিনটি যে ব্যাটসম্যানদের কঠিন পরীক্ষাই দিতে হবে সেটি অনুমেয়ই। তবুও লিড বাড়িয়ে নিতেই হবে।

পাঁচ জন ব্যাটসম্যান মিলিয়ে লিডটা কতটুকু বাড়াতে পারেন, এটাই এখন দেখার বিষয়।

শেষ বিকেলে বাংলাদেশের দুঃস্বপ্নের ব্যাটিং

প্রথম ইনিংসে ৭৮ রান এগিয়ে থাকার পরও দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে আসা-যাওয়ার মিছিলে যোগ দেন বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা। স্কোরকার্ডে মাত্র ৫৩ রান যোগ হতেই সাজঘরে ফেরেন টপ ও মিডল অর্ডারের পাঁচ ব্যাটসম্যান। শেষ পর্যন্ত ১৭ ওভারে পাঁচ উইকেটে ৫৫ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করে স্বাগতিকরা।

বাংলাদেশের লিড দাঁড়িয়েছে ১৩৩ রান। দ্বিতীয় দিন শেষে মুশফিকুর রহিম ১১ ও মেহেদী হাসান মিরাজ ০ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন।

নাঈম-সাকিবের ঘূর্ণিতে বাংলাদেশের ৭৮ রানে লিড

নাঈম-সাকিবের ঘূর্ণিতে আড়াইশর আগে গুটিয়ে গেছে উইন্ডিজের প্রথম ইনিংস। গুটিয়ে যাওয়ার আগে স্কোরকার্ডে ২৪৬ রান যোগ করতে সক্ষম হয় ক্যারিবীয়রা। তাতে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ পেয়েছে ৭৮ রানের লিড।

৩২৪ রানে থামে বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস

তাইজুল ইসলাম ও অভিষিক্ত নাঈম হাসানের দিকেই তাকিয়ে ছিল বাংলাদেশ। তবে দ্বিতীয় দিনের শুরুতে অবশ্য এই জুটির প্রতিরোধ বেশিক্ষণ টেকেনি। বাঁহাতি স্পিনার জোমেল ওয়ারিকেনের বলে প্রথমে সাজঘরে ফিরে যান অভিষিক্ত নাঈম হাসান।

ভাঙে তাইজুল-নাঈমের ৬৫ রানের জুটি। দুই বলের ব্যবধানে ফেরেন মুস্তাফিজুর রহমানও।

সব মিলিয়ে দ্বিতীয় দিনের ২৮ বলের মধ্যেই গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংস শেষে বাংলাদেশ স্কোরকার্ডে জমা করেছে ৩২৪ রান। ৬৮ বলে ৩৯ রান নিয়ে অপরাজিত থেকেই মাঠ ছাড়েন তাইজুল। ৪টি করে উইকেট নিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওয়ারিকান ও শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। কেমার রোচ ও দেবেন্দ্র বিশু পেয়েছেন একটি করে উইকেট।

বাংলাদেশ একাদশ: সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, মুমিনুল হক, মোহাম্মদ মিথুন, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, মুস্তাফিজুর রহমান, তাইজুল ইসলাম ও নাঈম হাসান।

উইন্ডিজ একাদশ: ক্রেইগ ব্রাথওয়েট (অধিনায়ক), কাইরন পাওয়েল, শাই হোপ, শিমরন হিটমেয়ার, রোস্টন চেজ, সুনীল আম্ব্রিস, শেন ডওরিচ, শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, জোমেল ওয়ারিকেন, কেমার রোচ ও দেবেন্দ্র বিশু।

 

-এ


-->


সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: Photonews24@yahoo.com

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: shufian707@gmail.com