মঙ্গলবার , ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » জাতীয় » ছয়টি আসনের সব কেন্দ্রের ভোট ইভিএমে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল নির্বাচন কমিশন


ছয়টি আসনের সব কেন্দ্রের ভোট ইভিএমে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল নির্বাচন কমিশন




ফটো নিউজ ২৪ : 24/11/2018


-->

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ছয়টি আসনের সব কেন্দ্রের ভোট ইভিএমে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

২৪ নভেম্বর, শনিবার বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ৪০তম কমিশন সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সভা শেষে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এ তথ্য জানান।

 

ইসি সচিব বলেন, সবার সিদ্ধান্তক্রমে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনের মধ্যে ৬টি পূর্ণাঙ্গ আসনে ইভিএম ব্যবহার করা হবে।

 

তিনি জানান, আগামী ২৮ নভেম্বর দৈবচয়নের ভিত্তিতে (লটারির মাধ্যমে) পূর্ণাঙ্গ ইভিএম ব্যবহার করা ৬টি আসন নির্ধারণ করা হবে। ইভিএম কেবল সিটি করপোরেশন এবং শহর এলাকায় ব্যবহার করা হবে।

 

সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, ৬টি আসনে কম কেন্দ্র না।

একটি আসনে ১৫০টি ইভিএম ব্যবহার হলে ৬টি আসনে ৯০০ ইভিএম ব্যবহার হবে।

 

অধিকাংশ রাজনৈতিক দলের বিরোধিতার মুখে একাদশ জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেয় ইসি। অনেকটা তড়িঘড়ি করেই তিন হাজার ৮২৫ কোটি ৩৪ লাখ টাকার ইভিএম কেনার প্রকল্প পাস করা হয়। যদিও পরে বলা হয় শহরভিত্তিক অল্প কিছু কেন্দ্র ইভিএম ব্যবহার করা হবে।

ইভিএমের ব্যবহারের বিরোধিতা করে ‘ইভিএমকে না বলুন, আপনার ভোটকে সুরক্ষিত করুন’ শিরোনামে সম্প্রতি সেমিনারও করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

অনেক দল ইভিএমের বিরোধিতা করেছে, তারপরও কেন ইভিএম ব্যবহার করছেন–এমন প্রশ্নের জবাবে হেলালুদ্দীন বলেন, ‘এটা কমিশনের সিদ্ধান্ত। যেহেতু ডিজিটাল ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে গেছে এবং মানুষ অনেক শিক্ষিত হয়েছে।

সামনে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করার পরিকল্পনাও আছে, ইতোমধ্যে আমরা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করে সফলতা পেয়েছি।’

তিনি বলেন, ইভিএমের প্রতিটি বুথে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এভারেজে ৪০০ লোকের ভোট গ্রহণ করার সক্ষমতা রয়েছে।

ইভিএম পরিচালনা কারা করবেন–এমন প্রশ্নের জবাবে ইসি সচিব বলেন, ‘ইভিএম যৌথ সংমিশ্রণে করা হবে। আগামীকাল থেকে সেনাবাহিনীর বেশ কিছু কর্মকর্তাদেরকে তিন দিন ধরে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। যারা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হবে তারা বিভিন্ন বিভাগে যাবেন।

ওখানেও কিন্তু সেনাবাহিনীর বেশ কিছু কর্মকর্তাদেরকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। সাথে আমাদের নির্বাচন কর্মকর্তারাও থাকবেন। নির্বাচনে সেনাবাহিনীর সদস্যরা টেকনিক্যাল সাপোর্ট দেবেন।’

বিএনপি রাজধানীর বেইলি রোডের অফিসার্স ক্লাব ও চট্রগ্রামের সার্কিট হাউজে গোপন বৈঠক সংক্রান্ত বিষয়ে আপনার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে।

বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন করলে হেলালুদ্দীন বলেন, ‘অামার বিরুদ্ধে বিএনপির অানিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। অাপনারা (সাংবাদিক) জানেন, অামি নির্বাচন কমিশনে প্রতিদিন রাত ৮টা-৯টা পর্যন্ত থাকি।’

হেলালুদ্দীন বলেন, নির্বাচন কমিশনের সচিব একজন প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তা। একটি ইন্ডিপেন্ডেন্ট বডিতে চাকরি করেন। নির্বাচন কমিশনের অাদেশ ও নির্দেশ পালন করেন। কমিশনের নিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে কাজ করার কোনো সুযোগ নেই, অালাদা কোনো সত্ত্বা নেই।

অামি এই (বিএনপির) সংবাদ সম্মেলনের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। এ ধরনের মিথ্যা প্রপাগান্ডা যেন অার না করা হয়।’

 

চট্টগ্রামের সার্কিট হাউজে বৈঠকের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এটাও সম্পূর্ণ মিথ্যা। অামি সার্কিট হাউজে যাইনি। অামার সঙ্গে অাসাদুজ্জামান (যুগ্ন সচিব, জনসংযোগ) ছিলেন। অামরা দুইজন একত্রে মিলে এয়ারপোর্ট থেকে সরাসরি হোটেলে গিয়েছি। হোটেলে ডিনার করেছি। পরদিন সকালে অামি ইউএনডিপির প্রোগ্রামে গিয়েছি। এটা সম্পূর্ণ একটি মিথ্যা প্রোপাগান্ডা। অামাকে বিতর্কিত করার জন্য, হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য এ ধরনের চাপ দেওয়ার জন্য উদ্দেশ্য নিয়েই এই কাজটি করেছে। কালকে কমিশন সভায় বসব এবং কমিশন সভায় মাননীয় কমিশনারদের কাছে বিষয়টি উত্থাপন করব। তারা যে সিদ্ধান্ত দেবে তা অাপনাদের জানাব।’

৮ নভেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। পুনর্র্নিধারিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ২৮ নভেম্বর; মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের দিন ২ ডিসেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৯ ডিসেম্বর ও ভোটের দিন ৩০ ডিসেম্বর।

 

-এ


-->


সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: [email protected]

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: [email protected]