বৃহস্পতিবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » জাতীয় » সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে কর্মবিরতি পালন করছে পরিবহন শ্রমিকরা,জনদুর্ভোগ চরমে


সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে কর্মবিরতি পালন করছে পরিবহন শ্রমিকরা,জনদুর্ভোগ চরমে




ফটো নিউজ ২৪ : 28/10/2018


-->

জাতীয় সংসদে পাস হওয়া সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী রবিবার সকাল থেকেই কর্মবিরতি পালন করছেন পরিবহন শ্রমিকরা।

এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন হাজার হাজার অফিসগামী মানুষ। সড়কে কোনো বাসের দেখা না পেয়ে অনেকে হেঁটেই রওয়ানা দিয়েছেন অফিসের উদ্দেশে। অনেকে আবার সর্বোচ্চ চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে বাসায় ফিরে যাচ্ছেন।

২৮ অক্টোবর, রবিবার সকালে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

মো. ফরহাদ হোসেন। অাশুলিয়া এলাকার একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। আর পরিবার নিয়ে থাকেন মিরপুর-২ নম্বর এলাকায়। প্রতিদিনের মত অাজও সকাল ৮টার অাগেই বাসা থেকে বেরিয়েছেন অফিসের উদ্দেশে।

কিন্তু মূল সড়কে গিয়ে হতাশ হন। কারণ মিরপুর-১ নম্বর থেকে অাশুলিয়াগামী কোনো বাসই চলাচল করছে না আজ। এরপরও অফিসে পৌঁছাতে রিকশা ও সিএনজিচালিত অটোরিকশায় তিনি দিয়া বাড়ি পর্যন্ত গিয়ে অাবার ফেরত এসেছেন।

ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘পরিবহন ধর্মঘটের কথা জেনেও সকাল সকাল অফিসের উদ্দেশে বেরিয়ে ছিলাম। বাস না পেয়ে সিএনজি ও রিকশায় দিয়াবাড়ি পর্যন্ত গিয়েছিলাম। তবে এরপরে অার কেউই ঝুঁকি নিয়ে সামনে যেতে চায় না। তাই বাধ্য হয়েই বাসায় ফিরে যাচ্ছি।’

 

শ্যামলী এলাকার সাদ্দাম মিয়া নামের এক ব্যক্তি বলেন, ‘দুই ঘণ্টা ধরে দাঁড়িয়ে থেকেও কোনো বাস পাইনি।

অার রিকশায় যে যাব সে অবস্থাও নেই। শ্যামলী থেকে শাহবাগের ভাড়া চায় ৪০০ টাকা।

অার সিএনজিতে যে যাব, একটিও খালি সিএনজি এখনো চোখে পড়েনি।’

 

 

এ বিষয়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি রুস্তম অালী খান বলেন, ‘সকাল থেকেই অামাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। ঢাকা ও ঢাকার বাইরের সব রোডে গাড়ি চলাচল বন্ধ রয়েছে।’

এ অবস্থায় সড়কে বাসের দেখা না পেয়ে খুব দ্রুত হেঁটেই গন্তব্যের উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছেন অনেকে।

হাতে ব্যাগ বা কাধে ব্যাগ নিয়ে গন্তব্যের উদ্দেশে ছুটে চলছেন তারা। এ ছাড়া কল্যাণপুর ও গাবতলি এলাকা থেকে দূরপাল্লার কোনো গণপরিবহনও ছাড়তে দেখা যায়নি।

২৭ অক্টোবর, শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক সমাবেশে ২৮ ও ২৯ অক্টোবর সারা দেশে ৪৮ ঘণ্টার কর্মবিরতি পালনের ঘোষণা দিয়েছেন শ্রমিক নেতারা।

 

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি ওয়াজি উদ্দিন খান এ ঘোষণা দেন।

এ সময় শ্রমিকদের পক্ষ থেকে আট দফা দাবিও উত্থাপন করা হয়।

শ্রমিকদের ওই ৮ দফা দাবিগুলো হলো-

সড়ক দুর্ঘটনায় সব মামলা জামিনযোগ্য করা
শ্রমিকদের অর্থদণ্ড পাঁচ লাখ টাকা প্রত্যাহার
সড়ক দুর্ঘটনার তদন্ত কমিটিতে শ্রমিক প্রতিনিধি রাখা
ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত করা
ওয়ে স্কেলে জরিমানা কমানো ও শাস্তি বাতিল
সড়কে পুলিশি হয়রানি বন্ধ
গাড়ি রেজিস্ট্রেশনের সময় শ্রমিকের নিয়োগপত্রে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষরের ব্যবস্থা রাখা
সব জেলায় শ্রমিকদের প্রশিক্ষণের পর লাইসেন্স ইস্যু ও লাইসেন্স ইস্যুর সময় হয়রানি বন্ধ করা।

 

শ্রমিক নেতাদের দাবি, সম্প্রতি সংসদে পাঁচ বছর কারাদণ্ড ও মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখে ‘শ্রমিকদের বিরুদ্ধে’ যে আইন পাস হয়েছে, তা বাতিল করতে হবে।

বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রী এ আইন বাতিলে বিশেষ ভূমিকা পালন করতে পারেন।

এর আগে গত ৭ অক্টোবর জাতীয় সংসদে পাস হওয়া সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনসহ সাত দফা দাবিতে ৯ অক্টোবর সকাল থেকে পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকা ধর্মঘট শুরু হয়েছিল।

সেদিন বিকেল ৪টায় সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের আশ্বাসে ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছিলেন ট্রাক পরিবহন শ্রমিকরা।

 

-এ


-->


সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: [email protected]

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: [email protected]