বৃহস্পতিবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » খেলা » মালদ্বীপকে ৯ গোলে উড়িয়ে সেমিতে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ দল


মালদ্বীপকে ৯ গোলে উড়িয়ে সেমিতে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ দল




ফটো নিউজ ২৪ : 27/10/2018


-->

সিনিয়র ফুটবলে মালদ্বীপের বিপক্ষে জিততে ভুলে গেছে বাংলাদেশ। তবে বয়সভিত্তিকে এই দ্বীপ রাষ্ট্রটির বিপক্ষে এখনও অপ্রতিরোধ্য লাল-সবুজরা।

অতীতের মতো শনিবার নেপালের আনফা অ্যাকাডেমিতেও সেই ধারা অব্যহত রেখেছে উচ্ছ্বাস, রাসেল, আশিকরা।

তবে এবার জয়ের ব্যবধান অনেক বেশী।

আশির দশকে বাংলাদেশ যেভাবে গোল বন্যায় ভাসাতো মালদ্বীপকে এবার অনূর্ধ্ব-১৫ দল সেই পথই অনুসরণ করলো সাফ ফুটবলে।

৯-০তে জিতে পারভেজ বাবুর দল এখন চলে গেল অনূর্ধ্ব-১৫ সাফের সেমিফাইনালে। অনূর্ধ্ব-১৫ সাফে এটাই বাংলাদেশের বড় জয়। গত বছর তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে তাদের ৮-০ গোলের জয় ছিল ভুটানের বিপক্ষে।

রোববার ‘এ’ গ্রুপ সেরা হতে বাংলাদেশের ড্র দরকার নেপালের বিপক্ষে। প্রথম ম্যাচে মালদ্বীপকে ৪ গোলে হারিয়েছিল নেপালীরা। বাংলাদেশের এই জয়ে নেপালও চলে গেছে শেষ চারে। আর খালি হাতে বিদায় মালদ্বীপের।

শনিবার টুর্নামেন্টের অন্য ম্যাচে ‘বি’ গ্রুপে পাকিস্তান ৪-০তে ভুটানকে হারিয়ে নিশ্চিত করেছে সেমিফাইনাল এবং গ্রুপ শ্রেষ্ঠত্ব। প্রথম ম্যাচে তারা ২-১ এর হারিয়েছিল ভারতকে।

বয়সভিত্তিক ফুটবলে মালদ্বীপের বিপক্ষে এটাই বাংলাদেশের বড় জয়। অনূর্ধ্ব-১৫ সাফে দুই দলের এটাই প্রথম সাক্ষাৎ। এই প্রথম মোকাবেলাকে স্মরণীয় করে রাখলেন মেহেদী হাসান বাহিনী।

২০১৫ এর অনূর্ধ্ব – ১৬ সাফের চ্যাম্পিয়নরা এই জয়ে এবারের আসর শুরু করে প্রত্যাশা বাড়িয়ে দিয়েছে সবার। পুরুষ ফুটবলে টানা ব্যর্থতার মাঝে এই জয় অনেক বড় অনুপ্রেরণা। এখন তারা রোববার গ্রুপের শেষ ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে জিততে পারলে বা ড্র করতে সক্ষম হলে সেমিতে ‘বি’ গ্রুপের রানার্সআপ দলকে পাবে।

কাঠামান্ডুর টার্ফে এই ম্যাচে ১১ মিনিটে নিহাত জামান উচ্ছ্বাসের গোলে বাংলাদেশের উল্লাসের সূত্রপাত। এরপর তিনি ২০, ২৩ মিনিটে আরো দুই গোল করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন। দ্বিতীয় গোলটি করেছেন দুই খেলোয়াড়কে কাটিয়ে।

৪৬ মিনিটে ১০ নং জার্সীধারী এই ফুটবলার করেন নিজের তৃতীয় গোল। পুরো প্রথমার্ধই ছিল এই উচ্ছ্বাসময়। প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে বাংলাদেশের স্কোর লাইন ৪-০তে নিয়ে যান অধিনায়ক মেহেদী হাসান। উচ্ছ্বাসের মতোই আরেক স্ট্রাইকার ৯ নং জার্সীধারী রাসেল আহমেদ জোড়া গোল আদায় করেন ৪৭ ও ৬৬ মিনিটে। ৭৪ মিনিটে উচ্ছ্বাসকে কোচ পারভেজ বাবু মাঠ থেকে তুলে নিলেও গোলের ধারা ব্যাহত হয়নি। তার বদলী আশিকুর রহমান ৮০, ৯৪ মিনিটে আরো দুই বার বল পাঠান মালদ্বীপের জালে। তার প্রথম গোলটি ছিল দর্শনীয় ব্যাকভলিতে।

ম্যাচ শেষে হ্যাটট্রিক করা কুড়িগ্রামের ছেলে উচ্ছ্বাস বলেন, খুব খুশী লাগছে জীবনের প্রথম আর্ন্তাজতিক ম্যাচে হ্যাটট্রিক করতে পারায়। আমার লক্ষ্যই ছিল গোল করা এবং সুযোগ পেলে হ্যাটট্রিক করার। তা করতে পেরে দারুন লাগছে। এদিকে কোচ পারভেজ বাবু জানান, এতো বড় ব্যবধানে জয়টা ছিল অপ্রত্যাশিত। মনে করেছিলাম প্রথম ম্যাচে হারের পর এই খেলায় মরিয়া থাকবে মালদ্বীপ। তাই আমরা সতর্ক হয়ে খেলা শুরু করি।

 

-এ


-->


সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: [email protected]

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: [email protected]