মঙ্গলবার , ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮


ছাত্রলীগের হাতুড়িপেটার শিকার তরিকুল ঢাকার পথে




ফটো নিউজ ২৪ : 08/07/2018


-->

  নিজস্ব প্রতিবেদক: কোটা ইস্যুতে আন্দোলনে গিয়ে ছাত্রলীগের হাতুড়িপেটার শিকার তরিকুল ইসলামকে ঢাকায় নেয়া হচ্ছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য রোববার সকালে সহপাঠীরা তাকে নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন।

আহত তরিকুল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। তিনি গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সুন্দরখোল উত্তরপাড়া গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে।

গত বৃহস্পতিবার থেকে ‘রাজশাহী রয়্যাল হাসপাতাল’ নামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তরিকুল। হাসপাতালটির চিকিৎসক সাঈদ আহমেদের তত্ত্বাবধানে তার চিকিৎসা চলছিল।

ওই চিকিৎসক জানান, তারা তরিকুলের বেশ কয়েকটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছিলেন। সেখানে দেখা যায়, তার ডান পায়ের হাড় ভেঙে গেছে। এর জন্য উন্নত অস্ত্রোপচার প্রয়োজন। তাছাড়া তরিকুলের মেরুদণ্ডের হাড় ভেঙেছে কি না তা এক্সরে রিপোর্টে বোঝা যাচ্ছিল না। এ জন্য আরও উন্নত পরীক্ষার প্রয়োজন। সেজন্য তরিকুলকে ঢাকায় নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তরিকুলের ছোট বোন ফাতেমা খাতুন জানান, তরিকুলের সহপাঠীরা রোববার সকালে তাকে নিয়ে ঢাকায় রওনা হয়েছেন। আর তিনি গাইবান্ধায় নিজেদের বাড়ি রওনা হয়েছেন। তরিকুলকে ঢাকায় কোন হাসপাতালে ভর্তি করা হবে সেটি তিনি এখনও জানেন না।

গত সোমবার কোটা সংস্কারের দাবিতে পতাকা মিছিল বের করেন রাবি শিক্ষার্থীরা। এ সময় মিছিলে হামলা করে ছাত্রলীগ। তরিকুলকে লাঠি ও হাতুড়ি দিয়ে পেটানো হয়। হামলার ছবি ও ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, রাবি ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আব্দুল্লাহ-আল-মামুন তরিকুলকে হাতুড়ি দিয়ে পেটান।

ওই হামলার পর পুলিশ আশঙ্কাজনক অবস্থায় তরিকুলকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার মাথায় ৯টি সেলাই পড়ে। রামেক হাসপাতালে পুলিশের হেফাজতেই তার চিকিৎসা চলছিল।

কিন্তু গত বৃহস্পতিবার তরিকুলকে রামেক হাসপাতাল থেকে ‘জোরপূর্বক’ ছুটি দেয়া হয়। তরিকুল সেদিন বলেছিলেন, তিনি সুস্থ নন। হাড় ভাঙা পুরো পায়ে প্লাস্টার থাকায় তিন-চারজন না ধরলে তিনি উঠে বসতেও পারেন না। সারা শরীরের ব্যথার অসহ্য যন্ত্রণা। রামেক থেকে ছুটি দেয়ায় সেদিন বিকেলে তরিকুলকে রয়্যাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের রাবি শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন তরিকুল। এখন পর্যন্ত সংগঠনটির অন্য সদস্যরাই তরিকুলের চিকিৎসার সব ব্যবস্থা করে যাচ্ছেন। পাশে নেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনও। তরিকুলের ওপর হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি। আটকও হয়নি কেউ।

— আর


-->


সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: [email protected]

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: [email protected]