মঙ্গলবার , ২৬ জুন ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » বিনােদন » শাকিব-অপুর সংসার জীবনের চিত্রনাট্য হয়তো এভাবেই লেখা হয়েছিল!


শাকিব-অপুর সংসার জীবনের চিত্রনাট্য হয়তো এভাবেই লেখা হয়েছিল!




ফটো নিউজ ২৪ : 12/03/2018


-->

সিনেমা শেষ হওয়ার পর যেভাবে পর্দায় লেখা ওঠে ‘সমাপ্ত’, সে হিসেবে তাদের বিচ্ছেদের যেটুকু আনুষ্ঠানিকতা বাকি ছিল ১২ মার্চ সোমবার সেটুকুও সম্পন্ন হয়ে গেল।

আর এর মধ্য দিয়েই সিনেমার আলোচিত এ জুটি আজ থেকে সাবেক দম্পতি।

এ বিষয়ে মঙ্গলবার দুপুরে কথা হয় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন অঞ্চল ৩-এর নির্বাহী কর্মকর্তা হেমায়েত হোসেনের সঙ্গে।

তিনি বলেন, ‘আজ শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের ডিভোর্সের শেষ শুনানি ছিল। মীমাংসা করার জন্য তাদের আইন অনুযায়ী ডাকাও হয়েছিল।

কিন্তু তারা কেউই হাজির হননি। সে হিসেবে তাদের সংসার জীবনের সমাপ্তি ঘটল।’

 

 

হেমায়েত হোসেন জানান, এ বছরের ১২ জানুয়ারি ও ১২ ফেব্রুয়ারি তাদের ডাকা হয়। ১২ জানুয়ারি অপু বিশ্বাস উপস্থিত হয়েছিলেন। কিন্তু অন্য দুটি তারিখে শাকিব-অপু কেউই হাজির হননি। নির্ধারিত সময় অনুযায়ী, ৯০ দিন উত্তীর্ণ হওয়ায় সালিশ মামলার আজ নিষ্পত্তি হয়েছে।

সে হিসেবে ডিভোর্সও কার্যকর হচ্ছে।

এ বিষয়ে সোমবার অপু বিশ্বাস বলেন, ‘প্রথম বৈঠকে আমি হাজিরা দিতে গিয়েছিলাম। তখন তাদের দিক থেকে কোনো রেসপন্স পাইনি। ১২ ফেব্রুয়ারি তাই আর যাওয়া হয়নি। আর সেখানে আজ তো যাওয়ার কোনো প্রশ্নই ওঠে না।

প্রত্যেকটা মানুষকে কিছু না কিছু আকড়ে ধরে বেঁচে থাকতে হয়, আমার এখন একটাই অবলম্বন আব্রাম। যেহেতু আব্রাম আছে, সময়ের ব্যাপ্তিকালে নিজেকে নতুনভাবে সাজিয়ে নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে।’

তবে তাদের বিবাহবিচ্ছেদ ২২ ফেব্রুয়ারি কার্যকর হয়েছে বলে দাবি করেছেন শাকিব খানের আইনজীবী শেখ সিরাজুল ইসলাম। ওই দিন বিকালে তিনি বলেছিলেন, ‘আজ ইসলামি বিবাহের মৌলিক বিধিবিধান অনুযায়ী জনপ্রিয় তারকা জুটি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের ডিভোর্স সম্পন্ন হয়েছে।’

একই দিন হেমায়েত হোসেন বলেছিলেন, ‘তাদের (শাকিব-অপুর) বিচ্ছেদ এখনও কার্যকর হয়নি। হাতে ১৮ দিন সময় আছে। এই সময়ের মধ্যে অনেক কিছুই ঘটতে পারে। তাদের তৃতীয় ও শেষ শুনানি হবে ১২ মার্চ। আর সেদিনই চূড়ান্ত হবে তালাক কার্যকর হবে, নাকি সমঝোতার মাধ্যমে বিষয়টির সুরাহা হবে।’

গত বছরের ২২ নভেম্বর সন্ধ্যায় শাকিব খান তার আইনজীবী শেখ সিরাজুল ইসলামের কার্যালয়ে যান। তার সহায়তায় অপু বিশ্বাসের ঠিকানায় তালাকের নোটিশ পাঠান। ওই সময় আইনজীবী জানান, আইন অনুযায়ী তালাক কার্যকর হওয়ার পর অপু বিশ্বাসকে বিয়ের দেনমোহর বাবদ সাত লাখ টাকা পরিশোধ করবেন শাকিব। আর ছেলের খরচ বাবদ এখন প্রতি মাসে অপুকে এক লাখ প্রদান করবেন।

২০০৬ সালে পরিচালক এফ আই মানিক পরিচালিত ‘কোটি টাকার কাবিন’ ছবিতে নায়িকা হিসেবে শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করেন অপু। সেই বছর থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত এই জুটি একাধারে ৭০টির মতো ছবিতে অভিনয় করেন। একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে এক সময় প্রেমের সম্পর্ক হয় তাদের।

২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল গোপনে বিয়ে করেন এই জুটি। গত বছরের শুরুর দিকে শবনম বুবলির সঙ্গে ঘরোয়া পরিবেশে একটি স্থির চিত্রে শাকিব খানকে দেখা যায়। ছবিতে ‘ফ্যামিলি টাইম ক্যাপশন লিখে নিজের সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রকাশ করেন বুবলি।

এরপরই অপু বিশ্বাসের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটে শাকিব খানের।

ভারতের কলকাতার একটি ক্লিনিকে ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর জন্ম হয় শাকিব-অপুর ছেলে আব্রাম খান জয়ের।

এরপর একই বছরের ১০ এপ্রিল বিকেল চারটায় দীর্ঘদিন গোপনে থাকা বিয়ে ও সন্তানের বিষয়টি প্রকাশ্যে নিয়ে আসেন অপু। দেশের একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে সরাসরি প্রচারিত অনুষ্ঠানে তিনি ছেলে আব্রামকে নিয়ে হাজির হন। এরপর থেকেই তাদের সম্পর্কের টানাপোড়েন দিনকে দিন বাড়তে থাকে।

 

-এ


-->


সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: [email protected]

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: [email protected]