শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » খেলা » ভারতের আধিপত্য নাকি পাকিস্তানের প্রত্যাবর্তন?


ভারতের আধিপত্য নাকি পাকিস্তানের প্রত্যাবর্তন?




ফটো নিউজ ২৪ : 18/06/2017


1497757749স্পোর্টস ডেস্ক : আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ইতিহাসেরই সবচেয়ে সফল দল ভারত। এই নিয়ে চতুর্থবারের মতো ক্রিকেট বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ এই আসরের ফাইনালে উঠল দলটি। এর মধ্যে কেবল ২০০০ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ফাইনালে হেরেছিল ভারত।

সেটা বাদ দিলে এই টুর্নামেন্টে শতভাগ সফল ভারত। ২০০২ সালে শ্রীলঙ্কার সাথে ফাইনালটা বৃষ্টিতে ভেসে গেলে যৌথভাবে সনাথ জয়াসুরিয়ার সাথে ট্রফি তুলে ধরেছিলেন ভারতের সৌরভ গাঙ্গুলি। এরপর ২০১৩ সালে মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বে শিরোপা জিতে ভারত।

দুই নম্বর র‌্যাংকিংধারী বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা এই টুর্নামেন্টে এসেছিল অন্যতম ফেবারিট হিসেবেই। আর টুর্নামেন্টে এখন অবধি ফলাফলও বিরাট কোহলির দলের শ্রেষ্ঠত্বই মেনে নেয়। আর আজকে লন্ডনে পাকিস্তানের বিপক্ষে ফাইনাল জিতে গেলে দলটা চলে আসবে র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে। বজায় থাকবে ভারতীয় আধিপত্য।

অপর দিকে, টুর্নামেন্ট শুরুর আগেও পাকিস্তানকে নিয়ে কেউ আশার বাণী শোনাচ্ছিলেন না। ভারতের বিপক্ষে ১২৪ রানের বিশাল ব্যবধানে হার দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করে পাকিস্তান। তবে, এরপরেই যেন অনেকটা বদলে যায় পাকিস্তান। পরের সবগুলো ম্যাচ জিতে আন্ডারডগ হিসেবে টুর্নামেন্ট শুরু করা সরফরাজ আহমেদের দলটাই আজ ফাইনালে। আর আজ জিতে গেলে সেটাকে পাকিস্তানের প্রত্যাবর্তন হিসেবেই দেখা হবে।

সাম্প্রতিক সময়ে পাকিস্তানের বলার মতো কোনো পারফরম্যান্স নেই। সেদিক থেকে এই টুর্নামেন্টে জিততে পারলে ক্রিকেটাররা দেশের হারানো গৌরব পুনরুদ্ধার করতে পারেন বলে মনে করছেন ইমরান খান।

তিনি বলেন, ‘যেভাবে আমরা ভারতের কাছে প্রথম ম্যাচটা হেরেছি, তাতে আমার মতে এটা আমাদের গৌরব পুনরুদ্ধারের একটা সুযোগ। বাজে ভাবে হারার পর এটা আমাদের ঘুরে দাঁড়ানোর মিশন। ভারতীয় ব্যাটিং লাইন আপ বেশ ভালো। ওরা দারুণ ফর্মে আছে। এই ক্ষেত্রে আমাদের স্পিনার আর পেসার হাসান আলীকে মূল ভূমিকা রাখতে হবে। ভারতকে চাপে ফেলতে হবে। আর আমাদের চাপ নিতে পারতে হবে।’

ইমরান খানের সতীর্থ ও সাবেক অধিনায়ক জাভেদ মিয়াঁদাদ সরাসরি কাউকে ফেভারিট বলতে নারাজ। তিনি বলেন, ‘রাজনৈতিক ইস্যুগুলোকে মাঠের বাইরে রেখে খেলোয়াড়দের খেলতে নামতে হবে। এটা আমাদের সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার একটা সুযোগও। দুই দলেরই আমি ফাইনাল জয়ের সমান সুযোগ দেখছি। এটা ঠিক যে ভারত, শক্তিমত্তায় আমাদের চেয়ে এগিয়ে। তবে, এমন বড় ম্যাচে যেকোনো কিছুই ঘটতে পারে।

তবে, সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি ফাইনালে এগিয়ে রাখছেন ভারতকেই। তিনি বলেন, ‘আমার সবসময়ই মনে হয় পাকিস্তান যখন ভারতের মুখোমুখি হয়, তখন ওরা অনেক বেশি চাপ নেয়, সুযোগ কাজে লাগাতে পারে না। দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা এমনকি ইংল্যান্ডের বিপক্ষেও পাকিস্তান যেমন খেলেছে সেটা ভারতের বিপক্ষে দেখা যায়নি। আর ফাইনালে শক্তিমত্তায় পাকিস্তানের চেয়ে ভারত অনেক বেশি এগিয়ে থাকবে। দলে কোনো দুর্বলতা নেই বললেই চলে। আশা করি, ফাইনালটা দারুণ হবে। পাকিস্তান তাদের সাধ্যমতো লড়াই করবে।’

অন্যদিকে, লঙ্কান কিংবদন্তি কুমার সাঙ্গাকারা এ ম্যাচটাকে দেখছেন ক্রিকেটের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ম্যাচ হিসেবে। তিনি আইসিসির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে এক কলামে লিখেছেন, ‘ক্রিকেট ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ম্যাচ দিয়ে শেষ হচ্ছে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। আশা করি শেষটাও ভালোই হবে।’




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক: আবু সুফিয়ান
চেয়ারম্যান: মুসলিমা সুফিয়ান

কল: 01723-980255,01919-972103
নিউজ রুম :01710-972103
ইমেল: [email protected]

১২মধ্য বেগুনবাড়ি,তেজগাঁও শিল্প এলাকা,ঢাকা -১২০৮
ইমেল: [email protected]